ক্রিকেটে বাড়বে ‘রিটায়ার্ড আউট’, বিশ্বাস অশ্বিনের - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, বিকাল ৩:২৭, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

ক্রিকেটে বাড়বে ‘রিটায়ার্ড আউট’, বিশ্বাস অশ্বিনের

banglanewsus.com
প্রকাশিত এপ্রিল ১৪, ২০২২
ক্রিকেটে বাড়বে ‘রিটায়ার্ড আউট’, বিশ্বাস অশ্বিনের

ডেস্ক রিপোর্ট : ‘রিটায়ার্ড আউট’ এই টার্মটার সঙ্গে খুব একটা পরিচিত ছিলেন না ক্রিকেটানুরাগীরা। তবে রবীচন্দ্রন অশ্বিনের কল্যাণে সম্প্রতি ‘রিটায়ার্ড আউট’ নিয়ে নতুন করে জানতে শুরু করছে সবাই।

আইপিএলের ম্যাচে লখনোউ সুপার জায়ান্টসের বিপক্ষে ‘রিটায়ার্ড আউট’ হয়ে ফেরেন অশ্বিন। আউট না হলেও পরবর্তী ব্যাটসম্যানকে সুযোগ করে দিতে নিজে থেকে মাঠ ছাড়েন অশ্বিন। এই ক্রিকেটারের এমন ট্যাকটিকাল মুভ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা সবই হয়েছে। তবে অশ্বিন বিশ্বাস করছেন, ভবিষ্যতে এমন ঘটনা আরও অনেকবার ঘটবে, বিশেষ করে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে।

লখনোর বিপক্ষে সেই ম্যাচে দ্রুত উইকেট হারানোতে শিমরন হেটমায়ারের সঙ্গে সাময়িক বিপর্যয় কাটাতে আগে নামানো হয় অশ্বিনকে। হেটমায়ারকে নিয়ে বিপর্যয় কাটাতে পারলেও দলের দাবি মেটানো রান করতে পারছিলেন না অশ্বিন। ২৩ বলে করেছিলেন ২৮ রান। দলের রান বাড়ানোর তাগিদে অশ্বিন নিজে থেকে উঠে গিয়ে মাঠে নামান হার্ড হিটার রিয়ান পরাগকে। যা চমকে দিয়েছিল সবাইকে।

তবে অশ্বিন মনে করছেন, এটা সময়ের দাবি। অশ্বিনের ভাষ্যে, ‘ফুটবল যেখানে চলে গেছে, টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটও খেলা হিসেবে সেই পথে এগোচ্ছে। ব্যাপারটা হলো বদলি খেলোয়াড় কীভাবে কাজে লাগানো হচ্ছে। আমি অনেকটা এই কাজই করেছি।’

ভারতীয় এই ক্রিকেটার আরও যোগ করেন, ‘আমরা আসলে এর মধ্যেই অনেক দেরি করে ফেলেছি। আমার বিশ্বাস, সামনের দিনগুলোয় এটা অনেক বেশি দেখা যাবে। নন-স্ট্রাইক প্রান্তে রান আউট করে দেওয়ার মতো বিতর্কিত কিছু এটা হবে না।’

অশ্বিন জানিয়েছেন, সেই ম্যাচে তার ব্যাটে-বলে ঠিকমতো টাইমিং হচ্ছিল না বলেই এমন ট্যাকটিকাল মুভ নিয়েছিলেন তিনি।

অশ্বিন বলেন, ‘এটা ট্যাকটিকাল পদক্ষেপ ছিল। রিয়ান পরাগ বেশ ভালো ফর্মে ছিল। গৌতমের ওভারটি (দুই ছক্কার ওভার) শেষ হওয়ার পর নিজেকে আরেকটু সময় দেই আমি, ৪-৫ বল, স্রেফ এটা দেখতে যে চার-ছক্কা মারতে পারি কি না। কয়েকটা বল স্লটে পেয়েছিও, চেষ্টা করেছি মারতে, কিন্তু টাইমিং হয়নি।স্রেফ ১০ বল বাকি ছিল তখন। পরাগ এসে এসে দুটি ছক্কা মারতে পারলেও আমাদের স্কোর ভালো জায়গায় যায়। এটা তাই ছিল ট্যাকটিকাল সিদ্ধান্ত।’

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।