হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, অর্ধশতাধিক আহত - BANGLANEWSUS.COM
  • নিউইয়র্ক, দুপুর ১২:৫২, ২৩শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ


 

হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, অর্ধশতাধিক আহত

banglanewsus.com
প্রকাশিত আগস্ট ২০, ২০২৩
হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ, অর্ধশতাধিক আহত

নিউজ ডেস্ক: হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগরে আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুপক্ষের অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

গুরুতর আহত বেশ কয়েকজনকে হবিগঞ্জ জেলা সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা শহরের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিয়েছেন।

রোববার বিকাল ৫টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত টানা ২ ঘণ্টা এ সংঘর্ষ চলে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী জানান, বিএনপির ভাঙচুর নৈরাজ্যের প্রতিবাদে বিকালে শহরের শায়েস্তানগর এলাকায় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনগুলো বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন, আওয়ামী লীগের মিছিলটি শায়েস্তানগর এলাকায় জেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে গেলে সেখানে থাকা বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে মিছিলকারী কয়েকজন বাকবিতণ্ডায় জড়ান।

পরে তাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। দুপক্ষই একে অপরের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকেন। এতে অন্তত অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হন।

হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক জিকে গউছের দাবি, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে তাদের জেলা কার্যালয়ে হামলা, ভাঙচুর চালায়।

এতে স্থানীয় বিএনপি নেতা জিকে গাফফার, জি কে মাওলা, শফিকুর রহমান সেতু, গোলাম মাহবুবু, ইমন আহমেদ, গুলজার খানসহ অনেকে আহত হয়েছেন।

পরে এলাকাবাসী আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের প্রতিহত করেন বলে দাবি জিকে গউছের।
হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী বলেন, “শনিবার বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যবসা-বাণিজ্য ও দোকান-পাটে অতর্কিত হামলা চালায়। এর প্রতিবাদে আমরা বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করি। মিছিলটি শায়েস্তানগর এলাকায় পৌঁছামাত্র ছাত্রদল-যুবদলের নেতাকর্মীরা আমাদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়।”

এতে স্থানীয় যুবলীগ নেতা আলা উদ্দিন, উজ্জ্বল মিয়া, নেতা সাব্বির আহমেদ রনি, সাদিকুর রহমান মকুল, শেখ সেবুল আহমেদ, বাবুল মিয়া, ছাত্রলীগ নেতা রকিব, সাদ্দাম হোসেন, কৃষকলীগ নেতা হারুন মিয়া, হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাইদুর রহমান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সারোয়ার, ছাত্রলীগ নেতা সারোয়ারসহ তাদের শতাধিক নেতাকর্মী আহত হন বলে দাবি আলমগীর চৌধুরীর।

খবর পেয়ে হবিগঞ্জ সদর থানার একদল পুলিশ গিয়ে কাঁদুনে গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে জানিয়ে হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বদিউজ্জামান বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন।